ফটোশপ workspace কি জিনিস ??

আপনি যখনই ফটোশপ ব্যাবহার করবেন অথবা ফটোশপ অপেন করবেন দেখবেন যে ডানে একটা লেয়ার প্যাঁলেট থাকে সব সময়। আরও অনেক কিছু থাকে যেমন ধরেন color, swatches, styles, adjustments………..।।

এবং উপরে লেখা থাকে যে essentials…।। essential টা হচ্ছে ফটোশপ এর default একটি workspace যা আপনি ফটোশপ অন করার সাথে সাথেই পাবেন। নিচের ছবিতে দেখুন,

 

 

essential এ ক্লিক করার পরে আরও অনেক অপশন পাবেন যেমন ধরেন,

3d motion – যখন আপনি 3d নিয়ে কাজ করবেন তখন যদি 3d motion chose করেন তাহলে 3d ইমেজ বানানোর জন্য যেসব অপশন্‌স এর দরকার পরে সব আপনার ডানের প্যানেল এ চলে আসবে।

painting – পেইন্টিং সিলেক্ট করলে আমাদের পেইন্টিং করতে যা যা অপশন লাগবে সব চলে আসবে অথবা অনেক জরুরি গুলা আসবে।

এভাবে আরও কয়েকটা আছে যেগুলা ফটোশপ এর default এ সেভ করা। কিন্তু যদি আমরা চাই আমাদের নিজের ইচ্ছা মতো workspace বানাইতে যাতে আমাদের সুভিদা মতো প্যানেল পাই তখন কি করবো ??

স্টেপ ১ -

আমরা নিচের ছবিতে দেখতে পাইতাছি যে এইখানে শুধু একটা প্যাঁলেট আছে তা হইতেছে লেয়ার প্যাঁলেট। এখন আমি একজন কি বলবো ম্মম্মম্মম ধরেন আমি একজন tutorial maker। আমার টিউটরিয়াল বানাইতে কি কি জিনিস লাগতে পারে ??

 

 

উপরের এই ছবিতে শুধু লায়ের এর প্যাঁলেট দেওয়া আর কিচ্ছু না। এখন আমি সব সময় টিউটরিয়াল বানাই না অথবা ইমেজ বানাই না। কিন্তু যখন বানাই তখন আমার নিচের ছবির যা যা অপশন দেখতেছেন সব লাগে। আবার অন্য সময় আমি মোবাইল নিয়ে কাজ করি যার কারনে আমার এগুলার অনেক কিছুই লাগে না কিন্তু অন্য গুলা লাগে। তারমানে কি আমি যখনই টিউটরিয়াল বানাবো অথবা অন্য কিছু করবো আমাকে এইভাবে সব গুলারে আবার নতুন কইরা অন করতে হবে ??? মুটে ও না ।

 

 

তাই স্টেপ ২ এর লাইগা আপনাদের করনিও হচ্ছে যে যে জিনিস আপনার অনেক দরকার পরে এবং প্রায় সময়ই ব্যাবহার করেন তা দিয়ে আপনার নিজের একটা workspace তৈরি করুন। workspace অন করতে হলে menu>windows এ গেলেই পাবেন সব অপশন্‌স যেগুলা ক্লিক করলেই আপনার প্যাঁলেট এ চলে আসবে।

 

স্টেপ ৩ -

তারপর essential উপরে ক্লিক করুন দেখবেন যে new workspace নামে একটি অপশন আছে।

 

 

ফাইনাল স্টেপ -

এখন আপনার ইচ্ছা মতো আপনার workspace এর নাম দিন। যেমন আমি দিলাম my workspace

 

 

এর পর থেকে আপনার যখন ইচ্ছা আপনি essential এ ক্লিক করে আপনার workspace এ যেতে পারবেন। আজকের টিউটরিয়াল এই পর্যন্তই। এক জায়গায় বসে এক বারে ৫ টা টিউটরিয়াল লিখলাম তাই হয়তো এই টিউটরিয়ালে কথা বার্তা উল্টা পাল্টা লিখছি। আশা করি আপনার বুঝছেন :) না বুঝলে জানাবেন আমাকে অবশ্যই। ধন্যবাদ

 

 

 

ট্যাগসমূহ:

লেখক: ইরা আহমেদ

উনারে অনেক ভালোবাসি আর ভালোবাসি শিখাইতে...।। মানুষকে হাসাইতেও অনেক ভালো লাগে :) ফটোশপিং করা ব্লগ এ টিউটরিয়াল লেখা এবং উনার সাথে অনেক অনেক গল্প করা আমার শখ, অভ্যাস অথবা আমার দৈনন্দিন জীবন বলতে পারেন। ( University khular age porjonto :P )



কথোপকথন শুরু হয়ে গেছে! আপনিও যোগ দিন- ইতোমধ্যে 5 টি মন্তব্য করা হয়েছে :

  1. akashon January 21, 2013, at 9:15 am Reply

    ভাই আপনার লেখাটা অনেক সন্দর হয়েছে……..আপনাকে আনেক ধন্যবাদ

    • ইরা আহমেদon February 23, 2013, at 1:25 pm Reply

      জেনে খুশি হলাম যে আপনার ভালো লাগছে :)

  2. sourav hossainon January 31, 2013, at 10:42 pm Reply

    bai, if you don’t mind. eta Photoshop software er which varson. please answer me. thanks for the good work.

  3. নোমান সরকারon June 22, 2013, at 6:02 am Reply

    আজকের টিউটরিয়াল ভালো লেগেছে। অনেক শুভেচ্ছা আর ধন্যবাদ রইল। ছোট ছোট বিষয়গুলো আরও ছবি দিলে আমাদের মতন নতুনদের জন্য বুঝতে সুবিধা হবে। কারন যিনি সাঁতার জানে আর যিনি সাঁতার তাদের মধ্যে দূরত্ব এক আকাশ পরিমান। তবে এত সুন্দর সহজ ভাবে লেখা যে খুব কষ্ট হচ্ছে না বুঝতে। কিন্তু একজন ভালো শিক্ষকের কাছে ছাত্রের দাবী অনেক বেশি হয়। আশা করি, আমি আমার কথাটা বুঝাতে পেরেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *