সবাই কেমন আছেন ?? আশা করি ভালো। আমি ও ভালো এবং অনেক দিন পরে টিউটরিয়াল নিয়ে বসলাম। মাঝখানে কয়েকদিন একটু ব্রেক নিলাম সব কিছু থেকে। সবাইকে বিডিগিকস ওয়েবসাইট এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা। বিজনেস কার্ড যারা যারা আগে বানাইছেন তাদের তো মোটামুটি ধারনা থাকার কথা যে কিভাবে বানায় কিন্তু যারা কখনো বানান নি আমার মতো তারা আমার আজকের এই টিউটরিয়াল দেখতে পারেন এবং কিছু ধারনা ও নিতে পারেন :)

আমরা আজকে যে business card টি তৈরি করবো তা নিচের ছবিতে দেখুন,

 

 

 

আসেন এখন শুরু করা যাক আমার মেইন টিউটরিয়াল :D

স্টেপ ১ -

প্রথমে আমরা একটা ডকুমেন্ট ওপেন করি। ডকুমেন্ট এর সাইজ দিবো আমরা 2.25″ width  x 3.75 height । Normally আমাদের কার্ড এর সাইজ হওয়া উচিৎ 2″ width x 3.5″ height । কিন্তু আমরা একটু বাড়ালাম কেন ?? কারনটা হচ্ছে bleeding।

ফটোশপে অথবা যেকোনো একটা ডকুমেন্ট এ পুরুপুরি ইমেজ এ কালার করা প্রিন্ট আপনি হয়তো খুব কমই পান তার কারন হচ্ছে প্রিন্ট করার সময় কাগজ নড়াচড়া করার জন্য কিছু অংশ বাদ পরে যায়। এই edge টা যাতে না যায় সে কারনে আমাদের ডকুমেন্ট সাইজটাকে একটু বাড়িয়ে দিতে হয় যাতে আমাদের ডকুমেন্ট এর কোন দরকারি অংশ বাদ না পরে।

এবার আমরা resolution দিবো ৩০০। ৩০০ দেয়া ভালো যাতে ইমেজটার quality টা ভালো থাকে।

 

 

স্টেপ ২ -

যেহেতু আমাদের কার্ড এর কিছু অংশ বাদ পরে যাবে সেহেতু আমরা বাদ পড়ে যাওয়া অংশটাকে আলাদা করে নেই। আলাদা মানে দাগ দিয়ে রাখি যে আমরা আমাদের কোনো artwork যেন ঐ অংশের ভিতরে না করি। আলাদা করতে আমরা guides ব্যাবহার করতে পারি। guides ব্যাবহার করার আগে রুলার (ctrl+R)  অন করে নিন। তারপর বাম দিক থেকে guide টেনে ধরে ০ থেকে ৮ ইঞ্চি তে একটি guide place করুন। তারপর ৪ ইঞ্চি তে আবার আরেকটা place করুন। এরকম ডানে বায়ে সব দিকে ৮ ইঞ্চি এবং ৪ ইঞ্চি করে আপনার guide place  করুন।

 

 

আপনারা উপরের ছবিতে দেখতেই পাইতেছেন যে ” this is the cut line” লেখা আছে উপর লাইনটির উপরে। তার মানে হচ্ছে যে কোনো ভাবেই ঐ লাইন এর বাইরে বের হওয়া যাবে না । আর this is the safe line মানে হচ্ছে যে আপনি যদি এই লাইন এর ভিতরে থাকে তাইলে আপনার artwork কেটে যাওয়ারা আশঙ্খা কম।

যাই হোক আপনাদের practice এর জন্য আমি অবশ্যই বলবো যে আপনারা নিজে নিজে করুন কিন্তু যদি না পারেন guide সেট আপ করতে তাইলে ডাউনলোড সোর্স থেকে guide ব্যাবহার করা ফাইলটি ডাউনলোড করে নিন :)

 

স্টেপ ৩ -

এখন আমরা একটা একটা করে আমাদের ইমেজ ডকুমেন্ট এ প্লেস করবো তারপর ব্লেন্ড মোড change করে দিবো। প্রথমে ডাউনলোড সোর্স থেকে আমার দেয়া ছবি গুলা ডাউনলোড করে নিন। তারপর নিছের ছবি অনুযায়ী blend mode change করে নিন।

 

 

 

স্টেপ ৪ -

এখন আমরা আমাদের ব্যাকগ্রাউন্ড এর উপরে একটা floral vector ব্যাবহার করবো। আপনারা চাইলে ব্রাশ ব্যাবহার করতে পারেন অথবা নিজের বানানো কোনো লোগো ও ব্যাবহার করতে পারেন। ফুলটাকে place করার পরে blend mode overlay তে দিন। এখন যদি আপনার ফুল খুব বেশি দেখা না যায় অথবা হাল্কা দেখায় আপনার ফুল টাকে duplicate করে নিন ১ বার অথবা চাইলে ২ বার ৩ বার।

ডাউনলোড সোর্স থেকে আপনারা ফুলটাকে ডাউনলোড করে নিয়ে ব্যাবহার করতে পারেন চাইলে :)

 

 

স্টেপ ৫ -

 

এখন টেক্সট টুল সিলেক্ট করুন তারপর নিজের ইচ্ছা মতো নিজের নাম এবং title বসিয়ে দিন। নিজের নামটাকে একটু বড়ো করে দিবেন যাতে নামটা মানুষের চোখে পড়ে। আর আপনার নিজের ওয়েবসাইট অ্যাড করতে কখনই ভুলবেন না :) ফন্ট সাইজ ছোটো রাখাটাই বেটার। এইখানে ফন্ট সাইজ দেয়া হয়েছে

name – 12pt

the title -  8pt

the rest – 7pt

 

স্টেপ ৬ -

আসেন আমরা এখন কিছু dividers অ্যাড করে নেই। সাদা কালার দিয়ে আপনার ফোন নাম্বার, কোম্পানির নাম অথবা ওয়েবসাইট এর মাঝখানে লাইন আঁকুন তারপর opacity কমিয়ে ৩০ করে দিন। তারপর যতবার দরকার ততবার duplicate করে টেক্সট এর নিচে বসিয়ে দিন।

 

 

ফাইনাল স্টেপ -

সবার শেষে আমাদের যা করার বাকি তা হচ্ছে নামের পিছনে একটা বক্স অ্যাড করা যাতে আমাদের নাম টার একটা আলাদা সৌন্দর্য থাকে :P হাল্কা ধরনের একটা কালার chose করুন অথবা #16a0aa  এই কালার ও ব্যাবহার করতে পারেন। তারপর rectangle tool সিলেক্ট করে নিচের ছবির মতো একটা rectangle আঁকুন।তারপর blend mode Hard Light এ দিয়ে দিন।

এবং এরি মধ্যে দিয়ে শেষ হয়ে গেল আমাদের কার্ড ডিজাইন করা। এবার দেখুন আমি এই টিউটরিয়াল দেখে নিজে একটা বানাইছি। কার্ড এর নাম দিছি ফয়সাল আহমেদ। এখন দয়া কইরা ভাববেন না যে এইটা ফয়সাল এর বানানো । আমারটা কিছুটা ভিন্ন কিন্তু আপনারা request করলে অথবা যে জানেন না যে কিরকম ভিন্ন ভাবে তৈরি করেছি তারা গ্রুপ এ অথবা পেজ এ আমাকে অবশ্যই জানাবেন :)

 

 

আশা করি আপনাদের টিউটরিয়ালটি অনেক ভালো লেগেছে এবং উপকারেও আসছে। আরও টিউটরিয়াল পেতে আমাদের সাথে থাকুন। ধন্যবাদ সবাইকে :)

ট্যাগসমূহ:

লেখক: ইরা আহমেদ

উনারে অনেক ভালোবাসি আর ভালোবাসি শিখাইতে...।। মানুষকে হাসাইতেও অনেক ভালো লাগে :) ফটোশপিং করা ব্লগ এ টিউটরিয়াল লেখা এবং উনার সাথে অনেক অনেক গল্প করা আমার শখ, অভ্যাস অথবা আমার দৈনন্দিন জীবন বলতে পারেন। ( University khular age porjonto :P )



কথোপকথন শুরু হয়ে গেছে! আপনিও যোগ দিন- ইতোমধ্যে 28 টি মন্তব্য করা হয়েছে :

  1. রিয়াদ রহমানon October 5, 2012, at 4:38 pm Reply

    ;p ইরা আপু, আপনাকে এবং ফয়সাল ভাইয়াকে অনেকদিন ফলো করতেসি !!!!!!!!!!!! আপনি আর ভাইয়া মিলে বি ডি গিক্স পরিচালনা করছেন , তার কোন তুলনা হয় না। এবং সবচেয়ে বড় কথা আপনাদের ভালোবাসা দেখে আমি প্রতিবারি মুগ্ধ হই । কেমন করে পারেন ? বরাবরের মতই এই টিউটোরিয়াল খুবই ভাল হয়েছে ।

    • ইরা আহমেদon October 5, 2012, at 7:43 pm Reply

      ধন্যবাদ ভাইয়া আপনারে :) কেমনে পারি তাতো জানি না তবে একজন আরেকজনরে ছাড়া কিছুই পারি না :P দোয়া করবেন আমাদের জন্য :)

  2. শুভon October 9, 2012, at 10:04 pm Reply

    ইরাপু, খুব সম্ভবত ডকুমেন্ট সাইজ নিয়ে আমার এখানে কোন ঝামেলা হচ্ছে, আর সেকারনেই গাইড ও ঠিক মত সেট করতে পারছি না। তারপরেও নিজের মত করে গাইড দিয়ে বাকিগুলো ঠিকঠাক মত করে স্টেপ ৫ এ এসে আটকে গেলাম। ফন্ট আপনার মত করে দিলে একেকটা বিন্দুর মত লাগছে। ঝামেলা এখনো ধরতে পারলাম না। :(

    • ইরা আহমেদon February 23, 2013, at 1:16 pm Reply

      সাইজ ঠিকই আছে ভাই এইটাই business card এর সাইজ কিন্তু ব্লেডিং দিতে হয় । ব্লেডিং এর লাইগা এক্সট্রা স্পেস রাখা হইছে। আর বিন্দুর মতো লাগচ্ছে বলতে কি বুঝাইছেন বুঝি নাই ভাই :(

  3. Ashek Mahmudon October 11, 2012, at 3:23 pm Reply

    বিজনেস কার্ড প্রিন্ট মিডিয়ার সাথে জড়িত ৷ তাই RGB-এর বদলে অবশ্যই CMYK কালার ব্যবহার করবেন ৷ আর text input করার সময় illustrator-এ নিয়ে গেলে আরও ভাল হবে ৷ ধন্যবাদ ৷

    • ইরা আহমেদon February 23, 2013, at 1:16 pm Reply

      হ্যাঁ অবশ্যই আমার মনে হয় না এইটা আমি এইখানে মেনসন করছি। আপনি বইলা দেয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ :)

  4. ওয়ালিফon December 4, 2012, at 6:11 pm Reply

    আশা করি ফটোশপে সবাই বস হবে।

  5. Towfiqon December 16, 2012, at 4:06 pm Reply

    কার্ডটা জোশ হইসে তো। ! এখনই নিজের জন্য একটা তৈরী করি :D

    • ইরা আহমেদon February 23, 2013, at 1:17 pm Reply

      করেন ভাই কইরা অবশ্যই আমাদের সাথে শেয়ার করবেন :)

  6. Sadelul Islam Rubelon April 16, 2013, at 8:21 pm Reply

    THANKS.

  7. সুজন মাঝিon April 20, 2013, at 8:22 am Reply

    আপনার টিউটোরিয়ালটি পড়ে দারুণ কিছু টিপস্‌ এন্ড ট্রিক্‌ জানতে পারলাম। খুব ভালো লাগলো। আসলে আমি পোটোশপের ব্লেন্ড মুড সম্পর্কে আরো জানতে চাই।

    • ইরা আহমেদon May 1, 2013, at 10:59 am Reply

      ধন্যবাদ ভাই :) ব্লেন্ড মোড সম্মন্ধে আরও জানতে চাইলে গোগল মামার সাহায্য নিন :)

  8. Ibn Hasanon April 21, 2013, at 12:09 am Reply

    অসাধারণ হয়েছে :)
    প্লাস :D

  9. tanvirtanjuon May 6, 2013, at 3:23 pm Reply

    onek kom tutorial..ami chai psd.tutsplus.com er sob tutorial gula banglay dewa hok :)

    • ইরা আহমেদon September 23, 2013, at 4:15 pm Reply

      হাহাহা আমি একলা মানুষ এতো টিউটরিয়াল কেমনে বানামু ভাই :O

  10. নোমান সরকারon May 27, 2013, at 10:41 am Reply

    খুবই ভালো লাগল। শুভেচ্ছা রইল।

  11. Nazmul Hoqueon June 23, 2013, at 12:47 pm Reply

    Kesui Bolbona Ato valo tutarial ami kokono kothao paine tao abar Bangla Bhashai.

  12. Ajijulon July 18, 2013, at 3:31 pm Reply

    accha apni kon Software diye apnar kaj gulo koren ektu bolben ami bujhte parchi na :(

  13. মাহ্মুদুল হাসানon December 20, 2013, at 10:50 am Reply

    আপু সাথে ভিডিও টিউটোরিয়াল দিলে আরো ভালো হতো…

  14. SHAHon May 12, 2014, at 4:12 am Reply

    আপু আরও কিছু বিজনেস কার্ড এর প্রোজেক্ট দেন প্লিজ।

  15. Misbahon May 30, 2014, at 9:17 am Reply

    ইরা আহমেদ @ Mein hobe naki Main Hobe? :p

  16. jimboon June 1, 2014, at 6:34 pm Reply

    ইরা আপু ফটোশপ নিয়ে কি নতুন কোনো টিউটোরিয়াল আপলোড অথবা লেখা হবে না :/

Leave a Reply to SHAH Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *